হবিগঞ্জ ০৯:০৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ এপ্রিল ২০২৪, ২৭ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo আমার স্ত্রী সন্তানদের কোনো সম্পত্তির মালিক হতে দিব না, ব্যারিস্টার সুমন Logo আইনশৃঙ্খলায় অবদান রাক্ষায় জেলার শ্রেষ্ঠ হলেন চুনারুঘাট থানার ওসি হিল্লোল রায় Logo চুনারুঘাটে এফ.এন ফাউন্ডেশন ইউকে’র চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল Logo ফ্রেন্ডস ফাউন্ডেশন ও এসএসসি’৯১ ব্যাচ সিলেট বিভাগের মানবিক কার্যক্রম সম্পন্ন Logo চুনারুঘাটে যৌতুকের দাবীতে গর্ভবতী গৃহবধুকে ৫ দিন যাবৎ অমানুষিক নির্যাতন : ৯৯৯ কল পেয়ে উদ্ধার করল পুলিশ Logo হবিগঞ্জে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির স্বল্প মূল্যে চাল বিক্রয় শুরু : তদারকিতে খাদ্য বিভাগ Logo মাধবপুরে বাংলাদেশ প্রাঃ বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি ও বাংলাদেশ সরকারি প্রাঃ বিদ্যাঃ সমিতির যৌথ ইফতার মাহফিল Logo চুনারুঘাট সাংবাদিক ফোরামের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান প্রার্থী আশরাফ ছিদ্দিকীর উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ Logo বঙ্গবন্ধু পরিষদ রংপুর জেলার মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস পালন
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ভারতে পি কে হালদারকে গ্রেপ্তার

ভারতে গ্রেফতার পি কে হালদারকে ফেরত চেয়েছে বাংলাদেশঃ আইনি প্রক্রিয়া সময় লাগবে

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ভারতে পি কে হালদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ তথ্য  জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।তাঁকে ফেরত চেয়ে বাংলাদেশ ভারতের কাছে অনুরোধ করেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরে সময় লাগতে পারে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী জানিয়েছেন। এর কারণ হিসেবে তিনি বলছেন, এসব বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়।

বিক্রম দোরাইস্বামী মঙ্গলবার বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মাসুদ বিন মোমেনের সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এরপর তারা দুজনই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব মোমেন বলেন, ‘দুর্নীতি দমন কমিশনের সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতেই ভারত তাকে (পি কে হালদার) গ্রেপ্তার করেছে। এখন তাদেরও একটা আইনি প্রক্রিয়া আছে, সে অনুযায়ী প্রসেস হবে।’

পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া পি কে হালদারকে দেশের ফেরানোর ব্যাপারে ভারতের হাইকমিশনারের সঙ্গে কথা হয়েছে। আজ ভারতীয় হাইকমিশনারকে বললাম। তারা (ভারত) বলেছে, তাদের আইনি প্রক্রিয়া শেষ হলে তারা আমাদের সম্পূর্ণ সহযোগিতা করবে। তারপরে আমাদের রিকোয়েস্ট বিবেচনায় নেবে। তারা সম্পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে’—যোগ করেন পররাষ্ট্র সচিব।

এদিকে পি কে হালদারের বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে কথা হয়েছে জানিয়ে বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, ‘তার বিষয়ে কথা হয়েছে। দুই দেশের অপরাধীদের মোকাবিলার জন্য পারস্পরিক আইনি‌ সহায়তাসহ নানা ধরনের কাঠামো রয়েছে। এটি দুই দেশের নিয়মিত সহযোগিতার একটি অংশ।‌’

‘বাংলাদেশ সরকার ভারতের সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে তথ্য দিয়েছে। তারা ওই তথ্য যাচাইয়ের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে। এক্ষেত্রে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে। পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরে সময় লাগতে পারে। কারণ, এসব বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়।’

পি কে হালদারকে ফেরতের বিষয়ে বাংলাদেশ অনুরোধ করেছে কি না প্রশ্নে ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, ‘দেখুন, গত সপ্তাহে ছুটির দিনে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমাদের কাছে যা তথ্য আছে, তার ভিত্তিতে একটা সময় বাংলাদেশকে জানানো হবে। বুঝতে হবে, এটি কিন্তু বড়দিনের কার্ড বিনিময় নয়।’

গত শনিবার পি কে হালদার ও তার পাঁচ সহযোগীকে পশ্চিমবঙ্গের অশোকনগর থেকে গ্রেপ্তার করে ভারতের অর্থ সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনী এনফোর্সমেন্ট ডিরেকটরেট—ইডি।

তিন দিনের রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার পি কে হালদারসহ পাঁচজনকে আদালতে হাজির করে আরও ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে ইডি। শুনানির পর আদালত রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

আমার স্ত্রী সন্তানদের কোনো সম্পত্তির মালিক হতে দিব না, ব্যারিস্টার সুমন

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ভারতে পি কে হালদারকে গ্রেপ্তার

ভারতে গ্রেফতার পি কে হালদারকে ফেরত চেয়েছে বাংলাদেশঃ আইনি প্রক্রিয়া সময় লাগবে

আপডেট সময় ০১:৪৭:০০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ মে ২০২২

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ভারতে পি কে হালদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ তথ্য  জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।তাঁকে ফেরত চেয়ে বাংলাদেশ ভারতের কাছে অনুরোধ করেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরে সময় লাগতে পারে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী জানিয়েছেন। এর কারণ হিসেবে তিনি বলছেন, এসব বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়।

বিক্রম দোরাইস্বামী মঙ্গলবার বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মাসুদ বিন মোমেনের সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এরপর তারা দুজনই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব মোমেন বলেন, ‘দুর্নীতি দমন কমিশনের সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতেই ভারত তাকে (পি কে হালদার) গ্রেপ্তার করেছে। এখন তাদেরও একটা আইনি প্রক্রিয়া আছে, সে অনুযায়ী প্রসেস হবে।’

পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া পি কে হালদারকে দেশের ফেরানোর ব্যাপারে ভারতের হাইকমিশনারের সঙ্গে কথা হয়েছে। আজ ভারতীয় হাইকমিশনারকে বললাম। তারা (ভারত) বলেছে, তাদের আইনি প্রক্রিয়া শেষ হলে তারা আমাদের সম্পূর্ণ সহযোগিতা করবে। তারপরে আমাদের রিকোয়েস্ট বিবেচনায় নেবে। তারা সম্পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে’—যোগ করেন পররাষ্ট্র সচিব।

এদিকে পি কে হালদারের বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে কথা হয়েছে জানিয়ে বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, ‘তার বিষয়ে কথা হয়েছে। দুই দেশের অপরাধীদের মোকাবিলার জন্য পারস্পরিক আইনি‌ সহায়তাসহ নানা ধরনের কাঠামো রয়েছে। এটি দুই দেশের নিয়মিত সহযোগিতার একটি অংশ।‌’

‘বাংলাদেশ সরকার ভারতের সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে তথ্য দিয়েছে। তারা ওই তথ্য যাচাইয়ের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে। এক্ষেত্রে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে। পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া পি কে হালদারকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরে সময় লাগতে পারে। কারণ, এসব বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়।’

পি কে হালদারকে ফেরতের বিষয়ে বাংলাদেশ অনুরোধ করেছে কি না প্রশ্নে ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, ‘দেখুন, গত সপ্তাহে ছুটির দিনে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমাদের কাছে যা তথ্য আছে, তার ভিত্তিতে একটা সময় বাংলাদেশকে জানানো হবে। বুঝতে হবে, এটি কিন্তু বড়দিনের কার্ড বিনিময় নয়।’

গত শনিবার পি কে হালদার ও তার পাঁচ সহযোগীকে পশ্চিমবঙ্গের অশোকনগর থেকে গ্রেপ্তার করে ভারতের অর্থ সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনী এনফোর্সমেন্ট ডিরেকটরেট—ইডি।

তিন দিনের রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার পি কে হালদারসহ পাঁচজনকে আদালতে হাজির করে আরও ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে ইডি। শুনানির পর আদালত রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।