হবিগঞ্জ ১২:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo আমার স্ত্রী সন্তানদের কোনো সম্পত্তির মালিক হতে দিব না, ব্যারিস্টার সুমন Logo আইনশৃঙ্খলায় অবদান রাক্ষায় জেলার শ্রেষ্ঠ হলেন চুনারুঘাট থানার ওসি হিল্লোল রায় Logo চুনারুঘাটে এফ.এন ফাউন্ডেশন ইউকে’র চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল Logo ফ্রেন্ডস ফাউন্ডেশন ও এসএসসি’৯১ ব্যাচ সিলেট বিভাগের মানবিক কার্যক্রম সম্পন্ন Logo চুনারুঘাটে যৌতুকের দাবীতে গর্ভবতী গৃহবধুকে ৫ দিন যাবৎ অমানুষিক নির্যাতন : ৯৯৯ কল পেয়ে উদ্ধার করল পুলিশ Logo হবিগঞ্জে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির স্বল্প মূল্যে চাল বিক্রয় শুরু : তদারকিতে খাদ্য বিভাগ Logo মাধবপুরে বাংলাদেশ প্রাঃ বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি ও বাংলাদেশ সরকারি প্রাঃ বিদ্যাঃ সমিতির যৌথ ইফতার মাহফিল Logo চুনারুঘাট সাংবাদিক ফোরামের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান প্রার্থী আশরাফ ছিদ্দিকীর উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ Logo বঙ্গবন্ধু পরিষদ রংপুর জেলার মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস পালন

পুষ্টিবিদের পরামর্শ রমজানে যা খাবেন, যা খাবেন না, জেনে নিন ইফতারে যা খেতে পারেন…

  • ডেস্ক নিউজ:
  • আপডেট সময় ০৩:১০:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩
  • ১১৭ বার পড়া হয়েছে

রমজান প্রায় ১৪ ঘণ্টা দীর্ঘ হবে এই বছর। দিনের অর্ধেকের বেশি সময় যেহেতু না খেয়ে থাকতে হবে তাই সারাদিন কর্মক্ষম থাকার জন্য ইফতার ও সেহরিতে খেতে হবে সুষম খাবার ও পর্যাপ্ত পানি। এ সময় মানুষ না জেনে বুঝে খাদ্য নির্বাচন করলে পেট ফাঁপা, বদহজম দেখা দিতে পারে। তাই সঠিক খাবার খেয়ে রোজা থাকা উচিত। কিছু না খেয়ে খালি পেটে বা শুধু পানি খেয়ে কিংবা অতিভোজন করে রোজা থাকা থেকে বিরত থাকা ভালো।

জেনে নিন ইফতারে যা খেতে পারেন…

রোজাদারের খাবারের পরিমাণ তার বয়স, স্বাস্থ্য ও শারীরিক কাজের ওপর নির্ভর করবে। ইফতারে তেলে ভাজা খাবার সবারই প্রিয়। যদিও সেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। খাবারের দোকানগুলোর তেলে ভাজাগুলো স্বাস্থ্যের জন্য আরও ক্ষতিকর। কারণ একই তেল বারবার ব্যবহার করায় তা ট্রান্সফ্যাটে পরিণত হয়। যা ক্যানসারের কারণ হতে পারে। তাই তেলে ভাজা যদি একান্তই খেতে হয় তাহলে বাসায় বানিয়ে খাওয়া ভালো। অবশ্যই একই তেল বারবার না করে অল্প তেলে।

ইফতারে খাওয়া যেতে পারে.

শসা, কলা, খেঁজুর, খোরমা, মৌসুমী যে কোনো ফল। এখন কাঁচা আমও পাওয়া যেতে পারে তার শরবত বা তরমুজ দিয়ে শরবত বানিয়ে খাওয়া যেতে পারে। যা শরীরে খনিজ পদার্থ যোগানের সঙ্গে সঙ্গে পানিও যোগান দেবে। এতে করে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয় ও হজম সহজে হয়। রুচি পরিবর্তনের জন্য জিলাপি, নুডুলসও অল্প পরিমাণে খাওয়া যেতে পারে।

তবে বিরিয়ানি, তেহারি, হালিম এসব ভারী খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো। এশা ও তারাবির নামাজের পরে পরিমাণ মতো ভাত, সবজি, মাছ বা মাংস ও ডাল খেতে পারেন। তবে পরিমাণের দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সেহরিতে যা খেতে পারেন..

সেহরিতে ভারী, তেল, চর্বিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো। অধিক তেল, ঝাল খাবার না খেয়ে সহজপাচ্য, মুখরোচক ও স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করা উচিত। সারাদিন না খেয়ে থাকতে হবে বলে আবার অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করবেন না। কারণ খাওয়ার ৪-৫ ঘণ্টার মধ্যে পাকস্থলী থেকে অন্ত্রে গিয়ে জমা হয়। অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করলে সেটাও ৪-৫ ঘণ্টাতেই অন্ত্রে যাবে। তাই প্রয়োজনের অতিরিক্ত না খেয়ে পরিমাণমতো সুষম খাবার ও পর্যাপ্ত পানি গ্রহণ করুন। ভাত, সবজি, মাছ বা মাংস, ডিম, দুধ এগুলো খাওয়া যেতে পারে।

সারাদিনের পানির চাহিদা এ সময়ে পূরণ করতে হবে। তাই ইফতার থেকে সেহেরি পর্যন্ত দেড় থেকে দুই লিটার পানি পান করতে হবে। ফল খেলেও পানির চাহিদা পূরণ হবে, এছাড়া লেবুর পানি বা ইসুবগুলের শরবত খাওয়া যেতে পারে। তবে চা, কফি, বেভারেজ জাতীয় পানীয় এড়িয়ে চলা ভালো এগুলো শরীর থেকে পানি বের করে দেয়। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দিতে পারে।

যারা শরীরচর্চা করে থাকেন তারা ইফতারের পরে হালকা শরীরচর্চা করতে পারেন এতে ক্লান্তি ভাব কম হবে। ডায়াবেটিস, রক্তচাপ ও অন্যান্য রোগীরা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ ও খাবার গ্রহণ করবেন।

শামসুন নাহার তাহিরা, পুষ্টিবিদ

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

আমার স্ত্রী সন্তানদের কোনো সম্পত্তির মালিক হতে দিব না, ব্যারিস্টার সুমন

পুষ্টিবিদের পরামর্শ রমজানে যা খাবেন, যা খাবেন না, জেনে নিন ইফতারে যা খেতে পারেন…

আপডেট সময় ০৩:১০:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩

রমজান প্রায় ১৪ ঘণ্টা দীর্ঘ হবে এই বছর। দিনের অর্ধেকের বেশি সময় যেহেতু না খেয়ে থাকতে হবে তাই সারাদিন কর্মক্ষম থাকার জন্য ইফতার ও সেহরিতে খেতে হবে সুষম খাবার ও পর্যাপ্ত পানি। এ সময় মানুষ না জেনে বুঝে খাদ্য নির্বাচন করলে পেট ফাঁপা, বদহজম দেখা দিতে পারে। তাই সঠিক খাবার খেয়ে রোজা থাকা উচিত। কিছু না খেয়ে খালি পেটে বা শুধু পানি খেয়ে কিংবা অতিভোজন করে রোজা থাকা থেকে বিরত থাকা ভালো।

জেনে নিন ইফতারে যা খেতে পারেন…

রোজাদারের খাবারের পরিমাণ তার বয়স, স্বাস্থ্য ও শারীরিক কাজের ওপর নির্ভর করবে। ইফতারে তেলে ভাজা খাবার সবারই প্রিয়। যদিও সেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। খাবারের দোকানগুলোর তেলে ভাজাগুলো স্বাস্থ্যের জন্য আরও ক্ষতিকর। কারণ একই তেল বারবার ব্যবহার করায় তা ট্রান্সফ্যাটে পরিণত হয়। যা ক্যানসারের কারণ হতে পারে। তাই তেলে ভাজা যদি একান্তই খেতে হয় তাহলে বাসায় বানিয়ে খাওয়া ভালো। অবশ্যই একই তেল বারবার না করে অল্প তেলে।

ইফতারে খাওয়া যেতে পারে.

শসা, কলা, খেঁজুর, খোরমা, মৌসুমী যে কোনো ফল। এখন কাঁচা আমও পাওয়া যেতে পারে তার শরবত বা তরমুজ দিয়ে শরবত বানিয়ে খাওয়া যেতে পারে। যা শরীরে খনিজ পদার্থ যোগানের সঙ্গে সঙ্গে পানিও যোগান দেবে। এতে করে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয় ও হজম সহজে হয়। রুচি পরিবর্তনের জন্য জিলাপি, নুডুলসও অল্প পরিমাণে খাওয়া যেতে পারে।

তবে বিরিয়ানি, তেহারি, হালিম এসব ভারী খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো। এশা ও তারাবির নামাজের পরে পরিমাণ মতো ভাত, সবজি, মাছ বা মাংস ও ডাল খেতে পারেন। তবে পরিমাণের দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সেহরিতে যা খেতে পারেন..

সেহরিতে ভারী, তেল, চর্বিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো। অধিক তেল, ঝাল খাবার না খেয়ে সহজপাচ্য, মুখরোচক ও স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করা উচিত। সারাদিন না খেয়ে থাকতে হবে বলে আবার অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করবেন না। কারণ খাওয়ার ৪-৫ ঘণ্টার মধ্যে পাকস্থলী থেকে অন্ত্রে গিয়ে জমা হয়। অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করলে সেটাও ৪-৫ ঘণ্টাতেই অন্ত্রে যাবে। তাই প্রয়োজনের অতিরিক্ত না খেয়ে পরিমাণমতো সুষম খাবার ও পর্যাপ্ত পানি গ্রহণ করুন। ভাত, সবজি, মাছ বা মাংস, ডিম, দুধ এগুলো খাওয়া যেতে পারে।

সারাদিনের পানির চাহিদা এ সময়ে পূরণ করতে হবে। তাই ইফতার থেকে সেহেরি পর্যন্ত দেড় থেকে দুই লিটার পানি পান করতে হবে। ফল খেলেও পানির চাহিদা পূরণ হবে, এছাড়া লেবুর পানি বা ইসুবগুলের শরবত খাওয়া যেতে পারে। তবে চা, কফি, বেভারেজ জাতীয় পানীয় এড়িয়ে চলা ভালো এগুলো শরীর থেকে পানি বের করে দেয়। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দিতে পারে।

যারা শরীরচর্চা করে থাকেন তারা ইফতারের পরে হালকা শরীরচর্চা করতে পারেন এতে ক্লান্তি ভাব কম হবে। ডায়াবেটিস, রক্তচাপ ও অন্যান্য রোগীরা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ ও খাবার গ্রহণ করবেন।

শামসুন নাহার তাহিরা, পুষ্টিবিদ