হবিগঞ্জ ০৪:১৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo চা-বাগান এলাকায় এই প্রথম বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করলেন ব্যারিস্টার সুমন Logo এবার ঈদের ছুটিতে পর্যটকদের জন্য নতুন রূপে চুনারুঘাটের পর্যটন এলাকাকে সাজালেন ব্যারিস্টার সুমন Logo সাম্যের ঈদ চাই !!  মো: মাহমুদ হাসান  Logo নিজের পালিত গরু এমপি সুমনকে উপহার দিলেন এক ভক্ত Logo শায়েস্তাগঞ্জে ইয়াবাসহ মুদি মাল ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo শ্রেষ্ঠ এএসআই চুনারুঘাট থানার মনির হোসেন Logo দ্বিতীয় গোপালগঞ্জে’ আওয়ামী বিরোধীদের উত্থানের নেপথ্যে কী? Logo চুনারুঘাটে আরো ৭১টি পরিবার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর নতুন ঘর Logo চুনারুঘাটে ৭দিন ব্যাপী ভূমিসেবা সপ্তাহের উদ্বোধন  Logo ৪০ বছরের পুরাতন খোয়াই নদীতে স্পিডবোট ভাসালেন ব্যারিস্টার সুমন

মাধবপুরে চা-শ্রমিকরা দৈনিক মজুরি দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ

দৈনিক মজুরি ৩শ’ টাকা করার দাবিতে মাধবপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করেছেন চা শ্রমিকরা। আজ

আজ (২১ আগস্ট) রবিবার সকাল ১১টার দিকে মাধবপুর ও চুনারুঘাট উপজেলার সুরমা, তেলিয়াপাড়া, নয়াপাড়া, জগদীশপুর, বৈকুন্ঠপুর, চন্ডছড়া, চানপুর, চাকলা পুঞ্জি, সাতছড়িসহ মোট ৩৬ টি চা বাগানের শ্রমিকরা মাধবপুর উপজেলার মুক্তিযুদ্ধা চত্বরে মহাসড়ক অবরোধ করেন।

এসময় মহাসড়কে হাজার হাজার শ্রমিক অবস্থান নিয়ে তাদের দাবীর পক্ষে শ্লোগান দিতে থাকে। যার ফলে মহাসড়কের তিন পাশে শত শত যানবাহন আটকা পরে। সৃষ্টি হয় কয়েক কিলোমিটার দীর্ঘ তীব্র যানজটের।

খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মইনুল ইসলাম মঈন, মাধবপুর থানার ওসি মো: আব্দুর রাজ্জাক, মাধবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি আতিকুর রহমান আতিক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু সাধারণ শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ প্রত্যাহারে রাজি হননি।

মাধবপুর ও চুনারুঘাট উপজেলার ২৩ টি চা বাগান নিয়ে গঠিত লস্করপুর ভ্যালি’র সভাপতি রবিন্দ্র গৌড় জানান, আমরা গত বুধবার ঢাকায় শ্রম মন্ত্রণালয়ে মালিকপক্ষ ও সরকারপক্ষের সাথে তৃপক্ষীয় বৈঠক করি। সেখানে আমাদের দাবি মানা হয়নি। পরবর্তীতে গতকাল শনিবার শ্রীমঙ্গলে আমাদের শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি নৃপেন পালকে চাপ দিয়ে মজুরি ১৪৫ টাকা করার এগ্রিমেন্টে সই করানোর চেষ্টা করা হয়।

চা শ্রমিকরা চায় তিনশত টাকা মজুরি, তারা ১শত ৪৫ টাকা মজুরি প্রত্যাক্ষান করে আজ মহাসড়ক অবরোধ করছে।

সরকারের পক্ষ থেকে যদি আমাদেরকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে আমাদের দাবি দাওয়া উপস্থাপনের সময় দিয়ে ঘোষণা দিলে আমরা অবরোধ প্রত্যাহার করবো। নাহলে রাজপথ ছাড়বো না।

সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ জানান,’ আমরা তাদের বুঝিয়ে যানবাহন ছেড়ে দেয়ার জন্য চেষ্টা করেছি কিন্তু তারা আমাদের কথা শুনছে না।’ পৱে
বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে পৌছে দেয়া হবে বলে আশ্বস্থ করলে দুপুর ২ টার দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে চা শ্রমিকরা।

উল্লেখ্য মজুরি ৩০০ টাকা করার দাবিতে আজ দশম দিনের মতো পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি অব্যাহত রেখেছে চা শ্রমিকরা।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

চা-বাগান এলাকায় এই প্রথম বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করলেন ব্যারিস্টার সুমন

মাধবপুরে চা-শ্রমিকরা দৈনিক মজুরি দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ

আপডেট সময় ০৯:০০:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০২২

দৈনিক মজুরি ৩শ’ টাকা করার দাবিতে মাধবপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করেছেন চা শ্রমিকরা। আজ

আজ (২১ আগস্ট) রবিবার সকাল ১১টার দিকে মাধবপুর ও চুনারুঘাট উপজেলার সুরমা, তেলিয়াপাড়া, নয়াপাড়া, জগদীশপুর, বৈকুন্ঠপুর, চন্ডছড়া, চানপুর, চাকলা পুঞ্জি, সাতছড়িসহ মোট ৩৬ টি চা বাগানের শ্রমিকরা মাধবপুর উপজেলার মুক্তিযুদ্ধা চত্বরে মহাসড়ক অবরোধ করেন।

এসময় মহাসড়কে হাজার হাজার শ্রমিক অবস্থান নিয়ে তাদের দাবীর পক্ষে শ্লোগান দিতে থাকে। যার ফলে মহাসড়কের তিন পাশে শত শত যানবাহন আটকা পরে। সৃষ্টি হয় কয়েক কিলোমিটার দীর্ঘ তীব্র যানজটের।

খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মইনুল ইসলাম মঈন, মাধবপুর থানার ওসি মো: আব্দুর রাজ্জাক, মাধবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি আতিকুর রহমান আতিক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু সাধারণ শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ প্রত্যাহারে রাজি হননি।

মাধবপুর ও চুনারুঘাট উপজেলার ২৩ টি চা বাগান নিয়ে গঠিত লস্করপুর ভ্যালি’র সভাপতি রবিন্দ্র গৌড় জানান, আমরা গত বুধবার ঢাকায় শ্রম মন্ত্রণালয়ে মালিকপক্ষ ও সরকারপক্ষের সাথে তৃপক্ষীয় বৈঠক করি। সেখানে আমাদের দাবি মানা হয়নি। পরবর্তীতে গতকাল শনিবার শ্রীমঙ্গলে আমাদের শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি নৃপেন পালকে চাপ দিয়ে মজুরি ১৪৫ টাকা করার এগ্রিমেন্টে সই করানোর চেষ্টা করা হয়।

চা শ্রমিকরা চায় তিনশত টাকা মজুরি, তারা ১শত ৪৫ টাকা মজুরি প্রত্যাক্ষান করে আজ মহাসড়ক অবরোধ করছে।

সরকারের পক্ষ থেকে যদি আমাদেরকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে আমাদের দাবি দাওয়া উপস্থাপনের সময় দিয়ে ঘোষণা দিলে আমরা অবরোধ প্রত্যাহার করবো। নাহলে রাজপথ ছাড়বো না।

সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ জানান,’ আমরা তাদের বুঝিয়ে যানবাহন ছেড়ে দেয়ার জন্য চেষ্টা করেছি কিন্তু তারা আমাদের কথা শুনছে না।’ পৱে
বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে পৌছে দেয়া হবে বলে আশ্বস্থ করলে দুপুর ২ টার দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে চা শ্রমিকরা।

উল্লেখ্য মজুরি ৩০০ টাকা করার দাবিতে আজ দশম দিনের মতো পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি অব্যাহত রেখেছে চা শ্রমিকরা।