হবিগঞ্জ ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo ২২ দিন অন্ধকারে থাকার পর ব্যারিস্টার সুমনের সহযোগিতায় বিদ্যুৎ সংযোগ পেল ৩৪ টি পরিবার Logo মাধবপুরে আগুনে পুড়ে ছাই হলো মিলনের বেঁচে থাকার অবলম্বন Logo চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাচনে ১৭ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল Logo সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন Logo বিদ্যুৎপৃষ্ঠে নিহতের পরিবারের পাশে ব্যারিস্টার সুমন-এমপি Logo টেকনাফের ব্যাবসায়ী ৫শ’ পিছ ইয়াবাসহ চুনারুঘাটে গ্রেপ্তার Logo চুনারুঘাটে তীব্র দাবদাহে সুপেয় পানি ও খাবার স্যালাইন বিতরণ Logo শেখ হাসিনার আধুনিক চিন্তা ধারায় বদলে গেল কৃষিখাত, ব্যারিস্টার সুমন Logo কথায় কথায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক তাদের কাম কি? মানুষের টাকা মেরে দেয়া, ব্যারিস্টার সুমন Logo বাহুবলে অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন, জরিমানা ৫০ হাজার টাকা

চুনারুঘাটের ছনখলা খোয়াই নদীর অংশে বিদ্যুতের শক দিয়ে মাছ শিকার

চুনারুঘাট উপজেলার দক্ষিণ ছনখলা গ্রামে বিদ্যুতের মেইন তার থেকে সংযোগ দিয়ে খোয়াই নদী থেকে মাছ শিকার দুর্বৃত্তরা।এতে যেমন পোনা মাছ, ব্যাঙ, সাপ সব মারা পড়ছে তেমনি রয়েছে মানুষের জীবনের ঝুঁকিও।

নদীর পানিতে যখন বিদ্যুতায়ন করা হয় তখন কয়েকশ গজের মধ্যে যেকোনো প্রাণী ওই পানি স্পর্শ করা মাত্রই মৃত্যু অনেকটা নিশ্চিত।
এসব চিন্তা চেতনা মাথায় না নিয়েই মৎস লোভীরা এ কাজটি করছেন শুষ্ক মৌসুম (যখন নদীতে পানি কম থাকে) জুড়েই।
তারা প্রথমে নদীর একটি নির্দিষ্ট স্থান জিআই তার দ্বারা আবৃত করেন। তারপর ওই তারে বিদ্যুতের মেইন লাইন থেকে সংযোগ দেন।
কয়েক মিনিটের মধ্যেই আশপাশের মাছ এবং জলজ প্রাণী গুলো মারা যায়।
এরপর বিদ্যুৎ সংযোগ খুলে তারা বেশ ভাটিতে গিয়ে ভেসে যাওয়া মরা মাছ গুলো সংগ্রহ করেন।
সপ্তাহে দুতিন দিন তারা এ কাজটি করে থাকেন। সিন্ডিকেট করে কাজটি করায় সচেতন মহল ভয়ে মুখ খুলছেন না।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে ওই গ্রামের এক যুবক জানান, ছনখলা গ্রামেরই হাশিম মহালদার এর পুত্র আঃ আওয়াল দুপরাজ এর নেতৃত্বে এ ঝুঁকিপূর্ণ শিকারের কাজটি হচ্ছে দীর্ঘ দিন ধরে।
তারা প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তাদের বাঁধা দিচ্ছে না। বিষয়ে হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চুনারুঘাট জোনাল অফিসের ডিজিএম এর সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এর আগে তিনি এমন অভিযোগ পাননি। অচিরেই এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

২২ দিন অন্ধকারে থাকার পর ব্যারিস্টার সুমনের সহযোগিতায় বিদ্যুৎ সংযোগ পেল ৩৪ টি পরিবার

চুনারুঘাটের ছনখলা খোয়াই নদীর অংশে বিদ্যুতের শক দিয়ে মাছ শিকার

আপডেট সময় ০৩:০৪:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ এপ্রিল ২০২২

চুনারুঘাট উপজেলার দক্ষিণ ছনখলা গ্রামে বিদ্যুতের মেইন তার থেকে সংযোগ দিয়ে খোয়াই নদী থেকে মাছ শিকার দুর্বৃত্তরা।এতে যেমন পোনা মাছ, ব্যাঙ, সাপ সব মারা পড়ছে তেমনি রয়েছে মানুষের জীবনের ঝুঁকিও।

নদীর পানিতে যখন বিদ্যুতায়ন করা হয় তখন কয়েকশ গজের মধ্যে যেকোনো প্রাণী ওই পানি স্পর্শ করা মাত্রই মৃত্যু অনেকটা নিশ্চিত।
এসব চিন্তা চেতনা মাথায় না নিয়েই মৎস লোভীরা এ কাজটি করছেন শুষ্ক মৌসুম (যখন নদীতে পানি কম থাকে) জুড়েই।
তারা প্রথমে নদীর একটি নির্দিষ্ট স্থান জিআই তার দ্বারা আবৃত করেন। তারপর ওই তারে বিদ্যুতের মেইন লাইন থেকে সংযোগ দেন।
কয়েক মিনিটের মধ্যেই আশপাশের মাছ এবং জলজ প্রাণী গুলো মারা যায়।
এরপর বিদ্যুৎ সংযোগ খুলে তারা বেশ ভাটিতে গিয়ে ভেসে যাওয়া মরা মাছ গুলো সংগ্রহ করেন।
সপ্তাহে দুতিন দিন তারা এ কাজটি করে থাকেন। সিন্ডিকেট করে কাজটি করায় সচেতন মহল ভয়ে মুখ খুলছেন না।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে ওই গ্রামের এক যুবক জানান, ছনখলা গ্রামেরই হাশিম মহালদার এর পুত্র আঃ আওয়াল দুপরাজ এর নেতৃত্বে এ ঝুঁকিপূর্ণ শিকারের কাজটি হচ্ছে দীর্ঘ দিন ধরে।
তারা প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তাদের বাঁধা দিচ্ছে না। বিষয়ে হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চুনারুঘাট জোনাল অফিসের ডিজিএম এর সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এর আগে তিনি এমন অভিযোগ পাননি। অচিরেই এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।