হবিগঞ্জ ১০:০৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo ২২ দিন অন্ধকারে থাকার পর ব্যারিস্টার সুমনের সহযোগিতায় বিদ্যুৎ সংযোগ পেল ৩৪ টি পরিবার Logo মাধবপুরে আগুনে পুড়ে ছাই হলো মিলনের বেঁচে থাকার অবলম্বন Logo চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাচনে ১৭ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল Logo সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন Logo বিদ্যুৎপৃষ্ঠে নিহতের পরিবারের পাশে ব্যারিস্টার সুমন-এমপি Logo টেকনাফের ব্যাবসায়ী ৫শ’ পিছ ইয়াবাসহ চুনারুঘাটে গ্রেপ্তার Logo চুনারুঘাটে তীব্র দাবদাহে সুপেয় পানি ও খাবার স্যালাইন বিতরণ Logo শেখ হাসিনার আধুনিক চিন্তা ধারায় বদলে গেল কৃষিখাত, ব্যারিস্টার সুমন Logo কথায় কথায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক তাদের কাম কি? মানুষের টাকা মেরে দেয়া, ব্যারিস্টার সুমন Logo বাহুবলে অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন, জরিমানা ৫০ হাজার টাকা

হবিগঞ্জ শহরে সাংবাদিক সজল’র উপর সন্ত্রাসী হামলা

দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী পত্রিকার বার্তা বিভাগ ইনচার্জ সাংবাদিক এম. সজলু’র উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৭ টায় হবিগঞ্জ শহরের সদর আধুনিক হাসপাতাল এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা ত্রাস সৃষ্টি করে ক্যামেরা ছিনতাই, মোবাইল ভাংচুর ও অর্থকড়ি লুটপাট করে। হামলায় আহত সাংবাদিক এম. সজলুকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, , উল্লেখিত সময়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনের উদ্দেশ্যে দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন সাংবাদিক এম.সজলু। তিনি সদর আধুনিক হাসপাতাল এলাকায় পৌছামাত্র একাধিক মোটর সাইকেল আরোহী ৪/৫ জনের একদল অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করে তার উপর অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা সাংবাদিক সজলুকে এলোপাতারি আঘাত করে তার হাতে থাকা ক্যামেরা ছিনতাই, মোবাইল ভাংচুর ও অর্থকড়ি লুট করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন আহত সাংবাদিক সজলুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, একাধিক মোটরসাইকেল আরোহী হামলাকারীরা দলবদ্ধ হয়ে প্রথমে দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী কার্যালয়ে যায় এবং সাংবাদিক সজলুকে খোঁজাখুজি করে। পরে ফিরে আসার পথে তার উপর হামলা চালায়।

হামলায় আহত সাংবাদিক এম. সজলু জানান, গতকাল শনিবার দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী পত্রিকায় একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভুল রিপোর্টে ভোগান্তির শিকার রোগী” শিরোনামে একটি বস্তুনিষ্ট সচিত্র সংবাদ প্রকাশিত হয়। হামলার সময় সন্ত্রাসীরা আমাকে বলে, “তোর এত বড় সাহস কি করে হয়, তুই ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে নিউজ করলি কেন।”
তিনি জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অ়ভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনায জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তাৎক্ষনিক সাংবাদিক নেতৃ্ৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী জানান।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

২২ দিন অন্ধকারে থাকার পর ব্যারিস্টার সুমনের সহযোগিতায় বিদ্যুৎ সংযোগ পেল ৩৪ টি পরিবার

হবিগঞ্জ শহরে সাংবাদিক সজল’র উপর সন্ত্রাসী হামলা

আপডেট সময় ১১:৪৩:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২

দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী পত্রিকার বার্তা বিভাগ ইনচার্জ সাংবাদিক এম. সজলু’র উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৭ টায় হবিগঞ্জ শহরের সদর আধুনিক হাসপাতাল এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা ত্রাস সৃষ্টি করে ক্যামেরা ছিনতাই, মোবাইল ভাংচুর ও অর্থকড়ি লুটপাট করে। হামলায় আহত সাংবাদিক এম. সজলুকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, , উল্লেখিত সময়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনের উদ্দেশ্যে দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন সাংবাদিক এম.সজলু। তিনি সদর আধুনিক হাসপাতাল এলাকায় পৌছামাত্র একাধিক মোটর সাইকেল আরোহী ৪/৫ জনের একদল অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করে তার উপর অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা সাংবাদিক সজলুকে এলোপাতারি আঘাত করে তার হাতে থাকা ক্যামেরা ছিনতাই, মোবাইল ভাংচুর ও অর্থকড়ি লুট করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন আহত সাংবাদিক সজলুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, একাধিক মোটরসাইকেল আরোহী হামলাকারীরা দলবদ্ধ হয়ে প্রথমে দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী কার্যালয়ে যায় এবং সাংবাদিক সজলুকে খোঁজাখুজি করে। পরে ফিরে আসার পথে তার উপর হামলা চালায়।

হামলায় আহত সাংবাদিক এম. সজলু জানান, গতকাল শনিবার দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী পত্রিকায় একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভুল রিপোর্টে ভোগান্তির শিকার রোগী” শিরোনামে একটি বস্তুনিষ্ট সচিত্র সংবাদ প্রকাশিত হয়। হামলার সময় সন্ত্রাসীরা আমাকে বলে, “তোর এত বড় সাহস কি করে হয়, তুই ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে নিউজ করলি কেন।”
তিনি জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অ়ভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনায জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তাৎক্ষনিক সাংবাদিক নেতৃ্ৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী জানান।