হবিগঞ্জ ০৭:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সৎ প্রশাসকদের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা কোথায়? Logo চুনারুঘাটে ৩৯ বছরের বর্ণাঢ্য শিক্ষকতা পেশার অরবিন্দ দত্তের সমাপ্তি Logo ব্যারিস্টার সুমন এমপিকে সংবর্ধনা দিল চুনারুঘাট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি Logo চুনারুঘাটে ১৭ কেজি গাঁজা সহ কারবারি গ্রেপ্তার Logo ৪র্থ বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ হলেন চুনারুঘাট থানার এসআই লিটন রায় Logo ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার পরিকল্পনাকারী সোহাগ গ্রেফতার Logo ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় হত্যা মামলার আসামি জালাল গ্রেপ্তার Logo ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার পরিকল্পনার ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন Logo চুনারুঘাটে বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হলেন তৌফিক মিয়া তালুকদার Logo ব্যারিস্টার সুমনের হত্যার পরিকল্পনারকারীদের গ্রেফতারে দাবীতে চুনারুঘাটে মাথায় কাফনের কাপড় বেঁধে প্রতিবাদ 

চুনারুঘাটে ১৪৪ ধারা অমান্য করে দোকান দখলের চেষ্টা

চুনারুঘাট উপজেলার দুর্গাপুর বাজারে আদালতের জারি করা ১৪৪ ধারার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক ইকবাল হোসেন নামের এক নাবালকের সম্পত্তি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ১৬ এপ্রিল জোরপূর্বক নির্মাণ শ্রমিক দের কে নিয়ে বিরোধীয় ভূমিতে দোকান নির্মাণ কাজ চালান অভিযুক্ত কামাল উদ্দিন, আরজু মিয়া গং রা। মামলা সুত্রে জানা যায়, ইকবাল হোসেন নামে ওই নাবালক চুনারুঘাট উপজেলার রঘুরামপুর গ্রামের মৃত হাজী আবুল হাসানের পুত্র। আবুল হোসেন মৃত্যুর আগে তার নাবালক পুত্র ইকবাল হোসেনের নামে রঘুরামপুর মৌজায় একটি স্থানে ৩ দাগে ১৯ শতক ও আরেকটি স্থানে বিভিন্ন দাগে ৩ শত ৩৮ শতক জমি হেবা করে দেন। এরমধ্যে উনিশ শতক জমি দুর্গাপুর বাজারে অবস্থিত। নাবালকের নামে থাকা মুল্যবান ওই জমিটি গায়ের জোরে হাতিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করে আসছেন ইকবাল হোসেন এর নিকট আত্মীয় কামাল উদ্দিন, আরজু মিয়া, মানিক মিয়া, রায়হান মিয়া, রাজা মিয়া ও আব্দুল জলিল। এ অবস্থায় নাবালক ইকবাল হোসেনের মা মোছাঃ মিনারা খাতুন হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা চলাকালীন বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে উল্লেখিত ভূমিতে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখা ও আদালতের নির্দেশ ব্যতীত ওই ভূমিতে বিবাদীগন কোন রকম পরিবর্তন, নির্মাণ, খনন কাজ সহ প্রবেশ করতে পারবেন না বলে আদালতের আদেশের প্রেক্ষিতে চুনারুঘাট থানার এএসআই উত্তম কুমার গোপ ৮ এপ্রিল ১৪৪ ধারায় নোটিশ প্রদান করেন। কিন্তু ১৬ এপ্রিল হঠাৎই বিবাদীরা নির্মাণশ্রমিকদের কে নিয়ে ওই জায়গায় নির্মাণ কাজ চালানোর জন্য খনন করা শুরু করেন বলে অভিযোগ করেন বাদী মিনারা খাতুন। এ বিষয়ে জানতে চুনারুঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ এম আলী আশরাফের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি আমি অবগত রয়েছি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

সৎ প্রশাসকদের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা কোথায়?

চুনারুঘাটে ১৪৪ ধারা অমান্য করে দোকান দখলের চেষ্টা

আপডেট সময় ০১:৫৪:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২২

চুনারুঘাট উপজেলার দুর্গাপুর বাজারে আদালতের জারি করা ১৪৪ ধারার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক ইকবাল হোসেন নামের এক নাবালকের সম্পত্তি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ১৬ এপ্রিল জোরপূর্বক নির্মাণ শ্রমিক দের কে নিয়ে বিরোধীয় ভূমিতে দোকান নির্মাণ কাজ চালান অভিযুক্ত কামাল উদ্দিন, আরজু মিয়া গং রা। মামলা সুত্রে জানা যায়, ইকবাল হোসেন নামে ওই নাবালক চুনারুঘাট উপজেলার রঘুরামপুর গ্রামের মৃত হাজী আবুল হাসানের পুত্র। আবুল হোসেন মৃত্যুর আগে তার নাবালক পুত্র ইকবাল হোসেনের নামে রঘুরামপুর মৌজায় একটি স্থানে ৩ দাগে ১৯ শতক ও আরেকটি স্থানে বিভিন্ন দাগে ৩ শত ৩৮ শতক জমি হেবা করে দেন। এরমধ্যে উনিশ শতক জমি দুর্গাপুর বাজারে অবস্থিত। নাবালকের নামে থাকা মুল্যবান ওই জমিটি গায়ের জোরে হাতিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করে আসছেন ইকবাল হোসেন এর নিকট আত্মীয় কামাল উদ্দিন, আরজু মিয়া, মানিক মিয়া, রায়হান মিয়া, রাজা মিয়া ও আব্দুল জলিল। এ অবস্থায় নাবালক ইকবাল হোসেনের মা মোছাঃ মিনারা খাতুন হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা চলাকালীন বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে উল্লেখিত ভূমিতে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখা ও আদালতের নির্দেশ ব্যতীত ওই ভূমিতে বিবাদীগন কোন রকম পরিবর্তন, নির্মাণ, খনন কাজ সহ প্রবেশ করতে পারবেন না বলে আদালতের আদেশের প্রেক্ষিতে চুনারুঘাট থানার এএসআই উত্তম কুমার গোপ ৮ এপ্রিল ১৪৪ ধারায় নোটিশ প্রদান করেন। কিন্তু ১৬ এপ্রিল হঠাৎই বিবাদীরা নির্মাণশ্রমিকদের কে নিয়ে ওই জায়গায় নির্মাণ কাজ চালানোর জন্য খনন করা শুরু করেন বলে অভিযোগ করেন বাদী মিনারা খাতুন। এ বিষয়ে জানতে চুনারুঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ এম আলী আশরাফের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি আমি অবগত রয়েছি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।