হবিগঞ্জ ০২:৪৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন মাধবপুরের ওসি রকিবুল ইসলাম Logo বাহুবলে মুদ্দত আলী ও তার পরিবারের উপর হয়রানীমূলক হত্যা মামলা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে স্থানীয়দের মানববন্ধন Logo চুনারুঘাটে গাজীউর রহমান লন্ডনীর উদ্যোগে ৩শ’ চক্ষু রোগীকে ফ্রি চিকিৎসা ও ঔষধ বিতরণ  Logo মাধবপুরে কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও মেধাবৃত্তি প্রদান Logo চুনারুঘাটে উবাহাটা ইউনিয়নবাসীর সাথে ব্যারিস্টার সুমন এমপি’র মতবিনিময় Logo চুনারুঘাটের রাঁণীগাও ইউনিয়নের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে মত বিনিময় করেছেন ব্যারিস্টার সুমন এমপি Logo বাহুবল প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন: সভাপতি কুটি, সম্পাদক মাসুম Logo রেড সেল ইন বাংলাদেশের ৩য় প্রতিষ্টা বার্ষিকী অনুষ্ঠিত Logo চুনারুঘাটে দক্ষিণা চরণ স্মৃতি টি-২০ ক্রিকেট লক্ষ টাকার ফাইনাল টুর্নামেন্ট Logo চুনারুঘাট থানা পুলিশের অভিযানে মাদক মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

চুনারুঘাটে স্ত্রীর প্রতারণার স্বীকার এক প্রবাসী স্বামী : প্রতারক স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

চুনারুঘাটে স্ত্রীর প্রতারণার স্বীকার হয়েছেন এক প্রবাসী স্বামী। প্রতারণা করেও উল্টো স্বামীর পরিবারের উপর যৌতুকের কাউন্টার মামলা করে হয়রানি করছেন। অথচ ওই স্ত্রী স্বামীর বাড়িতে খুব একটা থাকতেন না। থাকতেন তার পিতার বাড়িতে।

জানা যায়- গভীর প্রেমের সুবাদে ২০১৯ ইংরেজি সালে চুনারুঘাট উপজেলার উবাহাটা ইউনিয়নের কাপুরিয়া গ্রামের জলফু মিয়ার ছেলে সৌদিআরব প্রবাসী আইমানের সাথে পাশের গ্রাম কেউন্দার বাচ্চু মিয়ার মেয়ে সুমাইয়া আক্তারের বিয়ে হয় ভিডিও কলের মাধ্যমে। পরে স্বামীর বাড়ির চেয়ে পিত্রালয়েই বেশি থাকতেন সুমাইয়া আক্তার।

মামলা ও পুলিশের তদন্ত সূত্রে জানা যায়- পিত্রালয়ে থাকলেও স্ত্রী হওয়ায় সঙ্গত কারণে সুমাইয়া আক্তারের ভরণপোষণ ও যাবতীয় খরচ স্বামী আইমান বহন করতেন। ভরণপোষণ ছাড়াও বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অঙ্কের টাকা স্ত্রী সুমাইয়ার কাছে পাঠিয়েছেন আইমান। স্বামীর সরলতার সুযোগ নিয়ে ও প্রবাসে থাকার কারণে পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েন সুমাইয়া আক্তার। পরে অবাধে মেলামেশা শুরু করেন পরকীয়া প্রেমিক সালাউদ্দিন নিরব ওরফে ফোয়াদের সাথে। সালাউদ্দিন নিরব ওরফে ফোয়াদ মিয়া উপজেলার উলুকান্দি গ্রামের সাবেক মেম্বার রফিক মিয়ার ছেলে। এতোকিছুর পরও সুমাইয়া সৌদিআরব যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করলে তার স্বামী আইমান ভিসা ও বিমান টিকেটের ব্যবস্থা করে। প্লাইটের দিন বিমানবন্দর থেকে সুমাইয়া ও ফোয়াদ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে হাতেনাতে দুজনকে ধরলে পরকীয়া প্রেমিক দৌড়ে পালিয়ে যায়। উল্লেখ যে, সংসার ভাঙ্গার জন্য ফোয়াদ তার ও সুমাইয়ার বিভিন্ন অশ্লীল ছবি আইমানের ইমুতে পাঠায়। আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর হবিগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন আইমানের বাবা।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

খন্দকার আলাউদ্দিন

হ্যালো, আমি খন্দকার আলাউদ্দিন, আপনাদের চারিপাশের সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।
জনপ্রিয় সংবাদ

রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন মাধবপুরের ওসি রকিবুল ইসলাম

চুনারুঘাটে স্ত্রীর প্রতারণার স্বীকার এক প্রবাসী স্বামী : প্রতারক স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট সময় ০৩:১৫:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

চুনারুঘাটে স্ত্রীর প্রতারণার স্বীকার হয়েছেন এক প্রবাসী স্বামী। প্রতারণা করেও উল্টো স্বামীর পরিবারের উপর যৌতুকের কাউন্টার মামলা করে হয়রানি করছেন। অথচ ওই স্ত্রী স্বামীর বাড়িতে খুব একটা থাকতেন না। থাকতেন তার পিতার বাড়িতে।

জানা যায়- গভীর প্রেমের সুবাদে ২০১৯ ইংরেজি সালে চুনারুঘাট উপজেলার উবাহাটা ইউনিয়নের কাপুরিয়া গ্রামের জলফু মিয়ার ছেলে সৌদিআরব প্রবাসী আইমানের সাথে পাশের গ্রাম কেউন্দার বাচ্চু মিয়ার মেয়ে সুমাইয়া আক্তারের বিয়ে হয় ভিডিও কলের মাধ্যমে। পরে স্বামীর বাড়ির চেয়ে পিত্রালয়েই বেশি থাকতেন সুমাইয়া আক্তার।

মামলা ও পুলিশের তদন্ত সূত্রে জানা যায়- পিত্রালয়ে থাকলেও স্ত্রী হওয়ায় সঙ্গত কারণে সুমাইয়া আক্তারের ভরণপোষণ ও যাবতীয় খরচ স্বামী আইমান বহন করতেন। ভরণপোষণ ছাড়াও বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অঙ্কের টাকা স্ত্রী সুমাইয়ার কাছে পাঠিয়েছেন আইমান। স্বামীর সরলতার সুযোগ নিয়ে ও প্রবাসে থাকার কারণে পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েন সুমাইয়া আক্তার। পরে অবাধে মেলামেশা শুরু করেন পরকীয়া প্রেমিক সালাউদ্দিন নিরব ওরফে ফোয়াদের সাথে। সালাউদ্দিন নিরব ওরফে ফোয়াদ মিয়া উপজেলার উলুকান্দি গ্রামের সাবেক মেম্বার রফিক মিয়ার ছেলে। এতোকিছুর পরও সুমাইয়া সৌদিআরব যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করলে তার স্বামী আইমান ভিসা ও বিমান টিকেটের ব্যবস্থা করে। প্লাইটের দিন বিমানবন্দর থেকে সুমাইয়া ও ফোয়াদ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে হাতেনাতে দুজনকে ধরলে পরকীয়া প্রেমিক দৌড়ে পালিয়ে যায়। উল্লেখ যে, সংসার ভাঙ্গার জন্য ফোয়াদ তার ও সুমাইয়ার বিভিন্ন অশ্লীল ছবি আইমানের ইমুতে পাঠায়। আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর হবিগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন আইমানের বাবা।